ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায়। কুরআনী চিকিৎসায় ব্রণ দূর করার উপায়

 

ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায়

ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায়, কুরআনী চিকিৎসায় ব্রণ দূর করার উপায়, দ্রুত ব্রণ দূর করার উপায়, এই সকল বিষয় নিয়ে আজ আমরা বিস্তারিত আলোচনা করবো।


ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায় এবং কুরআনের কিছু আয়াত এর মন্তব্য

ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায়: বর্তমান সময়ে প্রায় সব প্রাপ্তবয়স্ক মেয়ে বা ছেলেদের এই একই সমস্যা হল ব্রণ। ব্রণ আপনার মুখের উজ্জ্বলতা এবং কালো ভাবটা ফুটিয়ে তোলে। যাদের মুখ বেশি তৈলাক্ত বা বেশি ঘামে তাদের মুখেই বেশিরভাগ ব্রণ বেশি হয়ে থাকে।

এই ব্রণ দূর করার জন্য অনেকে অনেক রকম ক্রিম এবং অনেক কিছু ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু আমরা বেশিরভাগ কোনকিছু যাচাই-বাছাই না করে যে কোন ক্রিম মুখে ব্যবহার করে থাকি এই ব্রণ দূর করার জন্য। যার ফলে মুখের ব্রণ এর সাথে অন্যান্য সমস্যা গুলো দেখা দিতে শুরু করে।
 
মানুষের মুখ নরম মসৃণ ও কোমল হয়ে থাকে। তাই মুখে যেকোনো ক্রিম বা কেমিক্যাল ইউজ করার আগে সেটি সম্পর্কে জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এই সম্পর্কে কুরআনে একটি আয়াত রয়েছে।

সেটি হলো “ওয়া নুন্নাজ্জিলু মিনাল কুরআ'নি মা হুয়া শিফাউও ওয়া রাহমাতুল্লিল মুকমিনিন„। এর অর্থ হলো "আমি কুরআনুল কারীমে যা কিছু নাযীল করি, তা হচ্ছে ঈমানদারের জন্য রোগ মুক্তি ও রহমত''। এবং এই ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায় এর মাধ্যমে আপনি আপনার মুখের ব্রণ দূর করতে পারবেন।


ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায় ও কুরআনী চিকিৎসা


আমাদের প্রত্যেকের ব্যক্তিগত জীবনে শারীরিক সমস্যা হোক মানসিক সমস্যা হোক, যে কোনো সংকট এবং সমাধানের জন্য আমাদেরকে কুরআনের কাছে ফিরে যেতে হয়। আমাদের জীবনে যত রকম শংকর সমস্যা আছে সকল কিছু সমাধান রয়েছে কুরআনে।
 
আমাদের পূর্ণাঙ্গ জীবনবিধান এ সকল সমস্যার সমাধান কুরআনে দিয়েছেন আল্লাহ রাব্বুল আলামিন। আজ আমরা শরীর ও মুখের ব্রণ দূর করার কুরআনী চিকিৎসা সম্পর্কে জানব ইনশাল্লাহ। কুরআনে রোগমুক্তির জন্য অনেক ছোট ছোট আয়াত নাযিল করা হয়েছে।

আর এই ছোট-ছোট আয়াতগুলো দ্বারা আমরা বিভিন্ন চিকিৎসা সমাধান পেতে পারি। আর এই আয়াতগুলো পড়ার সাথে সাথে প্রতি হরফে দশ নেকি লাভ করারও সুযোগ রয়েছে ইনশাআল্লাহ।


আজ আমাদের সম্পর্কে বলতে যাচ্ছি আশা করি আপনারা এ বিষয়টিকে শেয়ার করে সবার কাছে পৌঁছে দিবেন। কারন আপনাদের মতন অন্যদেরও এ সমস্যা থাকলে তারাও এই রোগ থেকে মুক্তি পাবে। ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায় এর মাধ্যমে আপনি আপনার মুখের ব্রণ দূর করতে পারবেন। 

তার সাথে সাথে আমল করার কারণে আমরাও তাদের কাছ থেকে কিছু সব পেতে পারি। আমলটি করার আগে আমরা যে কোন দুরুদ শরীফ বেশ কয়েকবার পড়ে নিতে হবে। তারপর আমরা আউযুবিল্লাহ হিমিনাশ-শাইতানির রাযীম পড়ে কোরআনের আয়াত তেলাওয়াত করা শুরু করবো।

তারপরে আর কি করার পর আপনি আবার দূরুদ শরীফ পড়বেন। এই বিশেষ আমল টি হল সুরা বাকারার ৭১ নম্বর আয়াত। এখন আপনারা বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম পড়বেন, এবং মুসাল্লামাতুল লা শিয়াতা ফীহ পড়বেন।

এ আয়াতের অর্থ টি হচ্ছে সম্পন্ন নিখুঁত ও করুতিমুক্ত। আমার প্রিয় বন্ধুরা কোন মানুষই চায় না তার শরীরের চেহারায় কোন রকম দাগ বা খারাপ কোন কিছু স্পোর্ট পড়ুক।

কারো মুখে যদি অন্য কোন স্পর্ট থাকে সেটা অবশ্যই যন্ত্রণাদায়ক এবং অনেক দেখতে খারাপ লাগে। তাই আপনি আপনার চেহারা থেকে ব্রণ বা অযাচিত দাগ দূর করার জন্য যে আমলটি প্রতিদিন করবেন। মুসাল্লামাতুল লা শিয়াতা ফীহ এই আমলটি বা আয়াত টি প্রতিদিন ৪১ বার পড়েন।

তাহলে আল্লাহ তাআলা আপনার শরীরের যেকোনো দাগ ব্রণ বা যন্ত্রণাদায়ক ক্ষতিকর সকল কিছু থেকে মুক্ত রাখবেন ইনশাল্লাহ।

ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায় এবং কুরআনী ঔষধ

ইনশাআল্লাহ আপনি যদি মুসাল্লামাতুল লা শিয়াতা ফীহ প্রতিদিন ৪১ বার পড়েন। তাহলে আল্লাহ তাআলা আপনার যত রকম শরীরের দাগ ব্রণের সমস্যা বা যন্ত্রণাদায়ক স্পোর্ট থাকে তাহলে সেটি থেকে আপনাকে মুক্তি দিবেন।

 সাধারণত আমাদের মুখে ব্রণ বা কোনো দাগের জন্য আমরা অনেক ওষুধ বা ক্রিম ব্যাবহার করে থাকি। আপনি যদি ব্রণ দূর করার জন্য কোন ওষুধ সেবন করেন এবং মুখে কোন ক্রিম ব্যবহার করেন। এবং সেই ক্রিমটি ব্যবহার করার আগে যদি আপনি মুসাল্লামাতুল লা শিয়াতা ফীহ পড়ে।

সেই ওষুধ খাওয়ার আগে বা ক্রিম মুখে দেওয়ার আগে ওষুধ খাওয়ার আগে এটি পড়ে ফু দেন। তাহলে ইনশাল্লাহ সেই ওষুধ বা ক্রিম এর মাধ্যমে আল্লাহ তালা আপনার ব্রণ বা মুখের কালো দাগ দূর করে দিতে পারেন। ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায় এর মাধ্যমে আপনি আপনার মুখের ব্রণ দূর করতে পারবেন।

ব্রণ দূর করার কিছু কার্যকর ক্রিম

ব্রণ দূর করার ক্রিম


বর্তমান সময়ে ব্রণ মোটামুটি সকলের একটি বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আপনার চেহারা নষ্ট করার জন্য ভ্রমণের ভূমিকা অনেক। ব্রণ শুধু আপনার চেহারাটি নষ্ট করে না বরং চেহারার ভিতরে থেকে কোমলতা নষ্ট করে দেয়।

যাদের মূলত মুখের ত্বক তৈলাক্ত এবং বেশি ঘামে তাদের সমস্যাটি বেশি দেখা যায়। সাধারণত ভাবে ব্রণ ওঠার আরেকটা প্রধান কারণ বয়সন্ধি এবং হরমোনের পরিবর্তনের জন্য। আর এই ব্রণ দূর করার জন্য একটি কার্যকর ক্রিমের কথা এখন আমি বলব।

সেই টিমের নাম হল ফোনা ক্রিম। এই ক্রিমটি ব্যবহার করে অনেকের মুখে এই ব্রণ ওঠা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। কেউ কেউ আবার এই ক্রিম ব্যবহার করে চিরতরের মত ব্রণ থেকে মুক্তি পেয়েছে। আর এই ক্রিমটি শুধুমাত্র ব্রণের চিকিৎসা জন্য তৈরি করা বা ব্যবহার করা হয়। ব্রণ দূর করার ইসলামিক উপায় এর মাধ্যমে আপনি আপনার মুখের ব্রণ দূর করতে পারবেন।


















Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url